বিজেপি সমাজে বিভাজন ছড়াচ্ছে: অভিযোগ তুলে দল ছাড়লেন উত্তরপ্রদেশের দলিত সাংসদ সাবিত্রী বাঈ

বিজেপি সমাজে বিভাজন ছড়াচ্ছে: অভিযোগ তুলে দল ছাড়লেন উত্তরপ্রদেশের দলিত সাংসদ সাবিত্রী বাঈ

নিউজ ডেস্ক বেঙ্গল রিপোর্ট: বিজেপি সমাজে বিভাজন ছড়াচ্ছে, অভিযোগ তুলে দল থেকে ইস্তফা বাহরাইচের দলিত সাংসদ সাবিত্রী বাঈ ফুলের, বললেন, দেশের মন্দির নয়, প্রয়োজন সংবিধানের। দলিত বিজেপি সাংসদ সাবিত্রী বাঈ ফুলে দলত্যাগ করে তোপ দাগলেন নেতৃত্বকে। সংবাদ সংস্থা এএনআই ও পিটিআইয়ের খবর, উত্তরপ্রদেশের বাহরাইচের বিজেপি সাংসদ কাঠগড়ায় তুলেছেন দলকেই।

বিজেপি সমাজে বিভাজন ঘটাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। গত মঙ্গলবার তিনি মন্তব্য করেন, হনুমান দলিত, মনুবাদীদেরর দাস ছিলেন। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ হনুমানকে দলিত বলায় বিতর্কের সূত্রপাত হয়।

তাতে সামিল হয়ে সাবিত্রী বাঈ আরও বলেন, দলিত ও পিছিয়ে পড়া জাতপাতের লোকজনকে বাঁদর, হনুমান, রাক্ষস বলে কটাক্ষ করা হচ্ছে। আর বৃহস্পতিবার শেষ পর্যন্ত বিজেপি নেতৃত্ব সমাজে বিভাজনের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করলেন। সাবিত্রী আগেও বিজেপি নেতাদের দলিতদের ঘরে গিয়ে পাত পেড়ে বসে খাওয়ার সমালোচনা করেছিলেন, পাশাপাশি পাকিস্তানের স্থপতি মহম্মদ আলি জিন্নাহকে মহাপুরুষ বলেও শ্রদ্ধা জানান, যা বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেলে।

বৃহস্পতিবার দলের সঙ্গে সম্পর্ক চুকিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, সংবিধানের বাণী অক্ষরে অক্ষরে রূপায়ণ করাই তাঁর লক্ষ্য। এও বলেন, আমি দল থেকে ইস্তফা দিয়েছি। তবে মেয়াদ শেষ হওয়া পর্যন্ত পর্যন্ত সাংসদ থাকছি। ২৩ ডিসেম্বর থেকে দলিত স্বার্থ সামনে রেখে আন্দোলনে নামার কথা ঘোষণা করে সাবিত্রী বলেন, দেশের মন্দির নয়, সংবিধানের প্রয়োজন। অতীতে তফসিলিদের প্রতি কেন্দ্রের ও উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের উদাসীনতার অভিযোগেও সরব হন সাবিত্রী।

Facebook Comments