মহঃ আখলাক হত্যার তদন্তে থাকা অফিসার সুবোধ কুমারের মৃত্যুতে নাম জড়াল বিজেপি নেতার : অস্বস্থিতে যোগী সরকার

মহঃ আখলাক হত্যার তদন্তে থাকা অফিসার সুবোধ কুমারের মৃত্যুতে নাম জড়াল বিজেপি নেতার : অস্বস্তিতে যোগী সরকার

নিউজ ডেস্ক বেঙ্গল রিপোর্ট: আচ্ছে দিনের স্বপ্ন দেখিয়ে মানুষের ভালো করার জন্যই তো বিজেপি সরকারে এসেছিল ? খারাপ করার জন্য নিশ্চই নয় ? তাহলে বুলান্দশহরের ঘটনায় বিজেপি নাম জড়াচ্ছে কেন ? ঠিক এই ভাষাতেই বিদ্বজনেদের একাংশ বুলান্দ শহরের পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিংহ মৃত্যুর ঘটনায় প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন ।প্রসঙ্গত  উত্তরপ্রদেশের বুলান্দশহরের মাহাও গ্রামের ঘটনায় এবার নাম জড়িয়ে গেল বিজেপির।

বুলন্দশহর: তাঁর স্বামী মহম্মদ আখলাক খুনের তদন্ত করেছিলেন। সে জন্যই ষড়যন্ত্র করে তাঁকে মারা হয়েছে। এ জন্য হুমকিও পেতেন তিনি। অভিযোগ করলেন বুলন্দশহরে গতকাল গোরক্ষকদের তাণ্ডবে মৃত পুলিশ অফিসার সুবোধ কুমার সিংহের স্ত্রী রজনী সিংহ। এই ‘ষড়যন্ত্রে’ যারা যুক্ত, তাদের নাম প্রকাশের জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেছেন তিনি।

রজনীর বক্তব্য, দাদরির আখলাক খুনের ঘটনার তদন্তের সময় তাঁদের বহুবার হুমকি দেওয়া হয়। তাঁর দাবি, তাঁর স্বামীর মৃত্যু পূর্বপরিকল্পিত খুন ছাড়া কিছু নয়। তাঁর সঙ্গে ঠিক কী হয়েছিল তিনি এখনও জানেন না, কেউ বলছে, পাথরের আঘাতে তিনি মারা গিয়েছেন, কেউ বলছে, গুলি করা হয়েছে। তাঁদের হাসপাতালে যেতে বলা হয়, তখনই তাঁরা জানতেন, কোনও আশা নেই। তিনি আরও বলেছেন, যদি পুলিশ অপরাধীদের বাঁচাতে চেষ্টা করে, তবে এটাই ধরে নিতে হবে যে তারা চায়, তিনি আত্মহত্যা করুন।
ধৃত মূল অভিযুক্ত যোগেশরাজ বুলন্দশহরে জেলা বজরং দলের নেতা। যোগেশরাজের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ এবং ৩০৭ ধারায় মামলা দায়ের করে তাকে খুনে অভিযুক্ত করেছে পুলিস। তার বিরুদ্ধে লুঠপাট এবং সরকারি সম্পত্তি হানির অভিযোগও রয়েছে। এছাড়া এফআইআরে পুলিস যে ২৭ জনের নাম উল্লেখ করেছে তার মধ্যে রয়েছে স্যানা এলাকার বিজেপি যুবনেতা শিখর আগরওয়াল এবং ভিএইচপি–র নেতা উপেন্দ্র রাঘবের নামও।

যদিও যোগেশরাজ কোন সংগঠনের সদস্য তা নির্দিষ্ট করেননি এডিজি আইনশৃঙ্খলা। এডিজি আইনশৃঙ্খলা না বললেও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিস অফিসার জানালেন, যে সব অভিযুক্তদের নাম এফআইআর–এ আছে তাদের বেশির ভাগই বজরং দল, হিন্দু যুববাহিনী এবং শিবসেনার সদস্য। রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি যোগেশ্বর যেই দলেরই লোক হোকনা কেন তাকে অবিলম্বে গ্রেফতার করা উচিত ,যোগী আদিত্যনাথ এ বিষয়ে কতটা তৎপর হন এখন সেটাই দেখার ।

Facebook Comments