হুগলীর আদিসপ্ত গ্রামে ৫১৪ বছরের প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী উত্তরায়ণ মেলা

হুগলীর আদিসপ্ত গ্রামে ৫১৪ বছরের প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী উত্তরায়ণ মেলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, বেঙ্গল রিপোর্ট, হুগলী: হুগলী জেলার আদিসপ্ত গ্রামের কৃষ্ণপুরে ১লা মাঘ অনুষ্ঠিত হলো উত্তরায়ণ মেলা।

Deenikart Halal Store

হুগলী জেলার ঐতিহ্যশালী এই মেলা ৫১৪ বছর প্রাচীন। ১৪৯৪ খ্রিস্টাব্দে হুগলী জেলার বিখ্যাত বাণিজ্য নগর সপ্তগ্রামের অভিজাত জমিদার বাড়িতে জন্মেছিলেন রঘুনাথ দাস গোস্বামী। তাঁর বাবা ছিলেন রাজা হিরণ্য দাসের ভাই গোবর্ধন দাস। হিরণ্য দাস নিঃসন্তান হওয়ায় ভাইয়ের ছেলের প্রতি ছিল তার বিশেষ স্নেহ। বাড়ি, জমি, রত্ন সব সম্পত্তির মালিক হতেন রঘুনাথ কিন্তু তিনি কৃষ্ণ লীলায় মগ্ন। ছোটবেলা থেকেই ধর্মের প্রতি টান ছিল তাঁর। মাত্র ১৫ বছর বয়সে তিনি শান্তিপুরে অদ্বৈত আচার্যের ঘরে যান, মহাপ্রভুর কাছে আশ্রয় পাওয়ার আশায়। কিন্তু মহাপ্রভু তাকে বাড়ি ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেন কিশোর রঘুনাথ পয়লা মাঘের তিথিতে সপ্তগ্রামের কৃষ্ণপুরে নিজ বাড়ি তে ফিরে আসেন। বাড়ি ফিরতেই তাঁর খ্যাতি সর্বত্র ছড়িয়ে পরে। অগণিত
বৈষ্ণব ভক্ত ওইদিন তাকে দেখতে আসে। তারা তাকে বলে, আমরা সারা বছর ধরে এত সাধনা করে প্রভুর দর্শন পেলাম না, আর তুমি এই বয়সে প্রভুর দর্শন পেলে। তুমি যদি সত্যিই প্রভুর দর্শন পাও, তবে আমাদের ইলিশ মাছের ঝাল আর আমের টক খাওয়াও। তখন রঘুনাথ তাদের আবদার রাখতে বাড়ির পাশের আমগাছ থেকে আম পারতে এবং পুকুরে জাল ফেলতে নির্দেশ দেন। তাঁর কথা মতই সেই ঘোর শীতে মেলে আম এবং পুকুর থেকে ওঠে জোড়া ইলিশ।

কথিত আছে এরপর থেকেই ব্যান্ডেলের নিকটে অবস্থিত আদিসপ্তগ্রামের কৃষ্ণপুর গ্রামে রঘুনাথ দাস গোস্বামী মন্দিরের পাশেই বসে এই ঐতিহ্যশালী মাছের মেলা। বর্তমানে আজকের দিনে এই ঠাকুর বাড়িতে নাম সংকির্তনের আয়জন করাহয় পাশাপাশি গ্রাম থেকে মানুষ স্থানীয় আমবাগানে চড়ুইভাতির করে। বহু দূর থেকে মাছ ব্যাবসায়ীরা আসেন এই মেলায়। পুকুর, নদী, খাল-বিলের পাশাপাশি সামুদ্রিক মাছও মেলে এখানে।

Facebook Comments