কর্মসাথী প্রকল্পের ঋণের অনুমোদন রাজ্যে মধ্যে প্রথম হুগলীতে দেওয়ার শুরু হল

কর্মসাথী প্রকল্পের ঋণের অনুমোদন রাজ্যে মধ্যে প্রথম হুগলীতে দেওয়ার শুরু হল

বেঙ্গল রিপোর্ট, ডিজিটাল ডেস্কঃ মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দুর্গা পুজোর আগেই সারা রাজ্যের মধ্যে হুগলি জেলাতে প্রথম কর্মসাথী প্রকল্পের ঋণের অনুমোদন দেওয়ার কাজ শুরু হল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বেকার যুবক-যুবতীদের স্বনির্ভর করার জন্য একটি প্রকল্প ঘোষণা করেছিলেন ”কর্ম সাথী” প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে বেকার যুবক যুবতীদের সহজ কিস্তিতে ঋন দেয়া হবে। এই প্রকল্পের ঋন নিয়ে ব্যবসা শুরু করলে লোন শোধ করার ক্ষেত্রে পাবেন বিশেষ ছাড়। শুক্রবার জেলার ১৭২ জনের মধ্যে থেকে ১০১জনকে ঋণের অনুমোদন পত্র তুলে দেওয়া হয়।‌

এদিন চুঁচুড়া ভবন অফিসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হুগলির জেলাশাসক, হুগলি ডিসটিক সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাংকের চিপ অফিসার, হুগলি জেলা শাসক, অতিরিক্ত জেলা শাসক সহ বিশিষ্ট আধিকারিকরা।

হুগলি জেলাশাসক ওয়াই রত্নাকর রাও বলেনঃ ৯ সেপ্টেম্বর কোন রাজ্য সরকারের কাছ ”কর্ম সাথী” প্রকল্প বাস্তবায়নের নির্দেশ পায় সেইমতো আমরা ১৬ ই সেপ্টেম্বর জেলা স্তরে মিটিং করি। আজ হলো ১৬ অক্টোবর সারা রাজ্যের মধ্যে আমরাই প্রথম জেলা যারা এক মাসের মধ্যে ১০১ জনকে ঋণ অনুমোদন পত্র তুলে দিলাম। লকডাউন পরিস্থিতিতে পরিযায়ী ছাড়াও স্থানীয় বেকার সবাই যারা স্বনির্ভর হতে চান তারা যদি ঠিকঠাক ভাবে আবেদন করেন আবেদন করার ১৫ দিনের মধ্যে দু লাখ টাকা পর্যন্ত ঋনের অনুমোদন পাবেন। ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড় আছে বাকিটা সহজ কিস্তিতে ঋণ।

রাজ্য সরকারের একটি প্রকল্প আমরা বাস্তবায়িত করার চেষ্টা করেছি। এ ব্যাপারে হুগলি ডিসটিক সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাংকের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসারঃ সুজন সরকার ” বলেন হুগলি ডিস্ট্রিক্ট সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের মাধ্যমে লোন দেওয়া হবে। জেলায় এই ব্যাঙ্কের অধীনস্থ ২১টি শাখা রয়েছে। ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সের বেকার যুবক যুবতীরা ন্যূনতম অষ্টম শ্রেণী পাস হলে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনপত্র গৃহীত হলে লোনের অনুমোদন পত্র দেয়া হবে অনুমোদন পত্র স্থানীয় কো-অপারেটিভ ব্যাংকের মাধ্যমে দুই কিস্তিতে ঋণ পাবেন। রাজ্য সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়ন হওয়াই প্রশাসনের ভূয়শী প্রশংসা করেছেন উপস্থিত সকলে।

Facebook Comments