সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের নিয়ে ভাষা ও চেতনা সমিতির নববর্ষ উদযাপন

সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের নিয়ে ভাষা ও চেতনা সমিতির নববর্ষ উদযাপন

সুব্রত গুহ বেঙ্গল রিপোর্ট: ভাষা ও চেতনা সমিতির উদ্যোগে জাতীয় নববর্ষ উৎসব উদযাপন হল সুবাধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে মানিকতলা খালপাড়ে। সংগঠনের উদ্যোগে এটি ২৩ তম উদযাপন। এবার করোনা বিধির কারণে অনলাইন ও অফলাইন দুভাবেই উদযাপন করা হয়।

Deenikart Halal Store

অন্যবছর রবীন্দ্রসদন লাগোয়া আকাদেমি অফ ফাইন আর্টসের সামনে রাণুচ্ছায়া মঞ্চ তথা ছাতিমতলায় সারাদিন ১২ ঘন্টা ব্যাপী উৎসব হলেও এবার করোনা সংক্রমণ এড়াতে পাঁচ ঘন্টার অনুষ্ঠান করা হয় মানিকতলা খালপাড়ে। নববর্ষ উদযাপনের শুরুতে নাচ ও বিভিন্ন মনীষীর ছবি নিয়ে এলাকা পরিক্রমা করা হয়। মঞ্চের নামকরণ করা হৎ বাংলাদেশের বিশিষ্ট লোকগবেষক ও লেখক শামসুজ্জামান খানের নামে।

উৎসবের উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত। অভিনব উদ্বোধন। তিনি বললেন, উদ্বোধন। বাচ্চারা বলল, হলো হলো। সব বাচ্চাকে যুক্ত করে মন জয় করে নিলেন নিমেষে। উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশন করেন মালবিকা চক্রবর্তী। সমাপ্তি ভাষণ দেন বিশিষ্ট নাট্য ব্যক্তিত্ব দেবশঙ্কর হালদার। বললেন, জীবন এক যাত্রা। এই যাত্রার নানা অভিমুখ। সঠিক অভিমুখ খুঁজতে হবে। বাছতে হবে মানসিক ও শারীরিকভাবে বাঁচতে।
বাউল ও লোকসঙ্গীত পরিবেশন করেন নদীয়া ও ২৪ পরগণার শিল্পীরা। শিশুরাও অংশ নেয়। হাওড়ার ঝঙ্কার নৃত্যগোষ্ঠী বহ্নি বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিচালনায় চমৎকার লোকনৃত্য পরিবেশন করে। ২২০ জন শিশু কিশোর কিশোরীকে দেওয়া হয় নতুন পোশাক। প্রত্যেককে দেওয়া হয় মুখোশ। তাঁদের ও তাঁদের অভিভাবক অভিভাবিকা সবাইকে খাওয়ানো হয় পান্তাভাত শুঁটকি মাংসের চপ ও আমপোড়া সরবত।

Facebook Comments