সংসদের দুই কক্ষেই ধ্বনি ভোটে পাস কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল, তার পরেও কেন আন্দোলনে অনড় কৃষকরা!

সংসদের দুই কক্ষেই ধ্বনি ভোটে পাস কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল, এখনও আন্দোলনে অনড় কৃষকরা!

বেঙ্গল রিপোর্ট, ডিজিটাল ডেস্ক: আজ অধিবেশনের প্রথম দিনেই কেন্দ্রের তরফে কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল পেশ করেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। তার আগেই আন্দোলনের জেরে মৃত কৃষকদের তালিকা তৈরি ও মৃতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবিতে আজ লোকসভায় আলোচনা চেয়ে মুলতুবি প্রস্তাব আনে কংগ্রেস। পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করে বিজেপি ও কংগ্রেসের তরফে হুইপ জারি করে লোকসভা ও রাজ্যসভার সাংসদদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়।

সংসদের দুই কক্ষেই ধ্বনি ভোটে পাস কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল। প্রথমে সংসদের নিম্নকক্ষ তারপর উচ্চকক্ষ। পাস হল কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল। এদিন ধ্বনি ভোটে প্রথমে লোকসভায় পাস হয় কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল। আলোচনা ছাড়াই পাস হল দুই কক্ষে।

আলোচনা ছাড়াই বিল পাস হওয়ায় সরব কংগ্রেস। আর এই নিয়ে ক্ষুব্ধ কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী। তিনি বলেন, সংসদের এতদিনের ঐতিহ্য নষ্ট। কেন্দ্রীয় সরকার মন থেকে বিল প্রত্যাহার করতে চায়নি তা স্পষ্ট। মন থেকে চাইলে কৃষকদের অন্যান্য দাবি-দাওয়া নিয়ে আমরা যে আলোচনা চাইছিলাম সেটা মানা হল না কেন?অধীর আরও বলেন, “সংসদের গরিমা নষ্ট। সংসদে অন্তত বলার সুযোগ দেওয়া উচিত। আমরা আলোচনা করতে চাই। কিন্তু সরকার সেই চর্চায় রাজি নয়। সরকার কেন ভয় পাচ্ছে জানি না আমরা শুধু আলোচনা চেয়েছিলাম। বিরোধীদের বলার সুযোগই দেওয়া হল না। কৃষকদের চাপে পড়ে বিল প্রত্যাহার করেছে মনের ভাষা বোঝেনি সরকার।

এদিকে আন্দোলনে অনড় কৃষকরা। কৃষি আইন প্রত্যাহার বিল প্রসঙ্গে কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত বলেন, “আন্দোলনের জয় হলেও কোনও উদযাপন নয়। ৭৫০ মানুষ মারা গেছেন। তাদের আত্মবলিদানে আমাদের আমাদের আন্দোলনকে আরও জোর দেবে। নূন্যতম সহায়ক মূল্য সহ অন্যান্য কৃষকদের অন্যান্য দাবি-দাওয়া নিয়ে আন্দোলন জারি থাকবে।

Facebook Comments