ভারত পথিক রাজা রামমোহনের আগমনের ১৯২ তম বর্ষ উদযাপন

ভারত পথিক রাজা রামমোহনের আগমনের ১৯২ তম বর্ষ উদযাপন

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুর: ভারত পথিক রাজা রামমোহন রায়ের খেজুরী আগমনের ১৯২তম বর্ষ ও প্রাচীন খেজুরী বন্দর সংলগ্ন স্থানে রামমোহন মূর্তি প্রতিষ্ঠার ৫ম বার্ষিকী উপলক্ষে খেজুরী হেরিটেজ সুরক্ষা সমিতি’র পক্ষ থেকে শুক্রবার এক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

প্রাচীন খেজুরী বন্দর সংলগ্ন এলাকায় রামমোহন মূর্তির সম্মুখে রামমোহন ও দ্বারকানাথের মূর্তিতে মাল্যদানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংস্থার সভাপতি ড. অসীম কুমার মান্না। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সম্পাদক ড. রামচন্দ্র মন্ডল। সার্ধ দ্বিশতবর্ষে রামমোহন শীর্যক আলোচনায় অংশগ্ৰহণ করেন ড. লায়েক আলি খান, অধ্যাপক অমলেন্দু বিকাশ জানা, রামমোহন গবেষক সুবীর ভট্টাচার্য, রামমোহন রিমেমব্র্যান্স সোসাইটির সম্পাদক প্রসূন গাঙ্গুলি, হুগলীর রাধানগর রামমোহন মেমোরিয়াল অ্যান্ড কালচারাল অর্গানাইজেশন- এর সম্পাদক দেবাশীষ শেঠ,খেজুরীর বিধায়ক শান্তনু প্রামাণিক প্রমুখ। সঞ্চালনায় ছিলেন ড. বিষ্ণুপদ জানা। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সদস্যসদস্যা, ছাত্রছাত্রী সহ বহু মানুষজন।

দ্বিশতবর্ষে রামমোহন রায়ের জন্মভূমি হুগলীর রাধানগর গ্ৰামের জন্মভিটার পবিত্র মাটি আনুষ্ঠানিক ভাবে স্বাপন করা হয় খেজুরীর রামমোহন মূর্তি সংলগ্ন বেদীতে। মাটি স্থাপনের সময় স্বস্তিবচন পাঠ করেন শ্রীগোপাল মিশ্র। সমবেত ব্রাহ্মসঙ্গীত পরিবেশন করেন কলকাতার রামমোহন স্মরণ সমিতির সদস্য/সদস্যাগন। অনুষ্ঠানে রামমোহন শীর্যক চিত্র প্রদর্শনী করেন সংগ্ৰাহক মধুসূদন জানা।

প্রসঙ্গত, রাজা রামমোহন রায় বিলেত যাত্রাকালে কলকাতা থেকে ফোবর্স স্টিমারে চেপে ১৮৩০ খ্রীষ্টাব্দের ১৯ নভেম্বর খেজুরীতে আসেন। ঐদিন রাত্রি যাপন করে পরদিন ২০ নভেম্বর পালতোলা আলবিয়ন জাহাজে চেপে ইংলন্ডের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। ঐতিহাসিক এই ঘটনাকে স্মরনীয় করে রাখতে খেজুরী হেরিটেজ সুরক্ষা সমিতি ২০১৭ সালের ১৯ নভেম্বর প্রাচীন খেজুরী বন্দর সংলগ্ন স্থানে রাজা রামমোহন রায় ও খেজুরী বন্দর থেকে অপর এক বিলেত যাত্রী দ্বারকানাথ ঠাকুরের পূর্ণাবয়ব মূর্তি দুটি প্রতিষ্ঠা করে।

Facebook Comments