CAA- আইন বলবৎ না করেই অ-মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করলো কেন্দ্র

CAA- আইন বলবৎ না করেই অ-মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করলো কেন্দ্র

বেঙ্গল রিপোর্ট, ডিজিটাল ডেস্ক: শুক্রবার কেন্দ্রের তরফে ঘোষণা করা হয়। আফগানিস্তান, পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং গুজরাট, রাজস্থান, ছত্তিসগড়, হরিয়ানা, পাঞ্জাবের মতো রাজ্যে বসবাসকারী অ-মুসলিমদের (হিন্দু, শিখ, জৈন এবং বৌদ্ধ) ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এমনটাই জানান হয়েছে৷ তারা যাতে অবিলম্বে আবেদন করেন সেই ঘোষণাও দেওয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে। নাগরিকত্ব আইন ১৯৫৫ এবং ২০০৯ সালে প্রণীত নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের (CAA) অধীনে এই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। ২০১৯ সালে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন অনুযায়ী নয়।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, নাগরিকত্ব সংশোধন আইন ২০১৯ বাংলাদেশ থেকে আসা হিন্দু উদ্বাস্তুদের চিহ্নিত করবে, ফলে অনাগরিক অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা সহজ হবে। ১০ ডিসেম্বর ২০২০ থেকে সিএএ লাগু হয়েছে ভারতে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব অনিল মালিকের তরফে জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছিল, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ২০১৯, ধারা ১, উপধারা ২ মেনে ১০, জানুয়ারি ২০২০ থেকে আইন কার্যকর করা হল।’ পরবর্তীতে করোনা হানায় বন্ধ হয়েছিল সমস্ত প্রক্রিয়া।

উল্লেখ্য, ২০১৯ এর নাগরিকত্ব আইন (CAA) পাসের পর থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছিল। এমনকি দাঙ্গাও বাধে দিল্লিতে৷ ২০২০ সালেও সেই সিএএ বিরোধীতা অব্যাহত থাকে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক প্রকাশিত সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন সিএএ ২০১৯-এর মাধ্যমে ভারতে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, জৈন, শিখ ও পার্সিদের সহজেই নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া করা শুরু করা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রেকর তরফে জানানো হয়েছে, একমাত্র অনলাইনে এই আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে। আবেদন খতিয়ে দেখবেন সংশ্লিষ্ট রাজ্যের জেলা কালেক্টর বা স্বরাষ্ট্রসচিব। এরপর, তাঁরা কেন্দ্রকে রিপোর্ট পাঠাবে। কেন্দ্র সেই রিপোর্ট অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে।

Facebook Comments