অযৌক্তিক কারনে আবাস যোজনার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার অভিযোগ

অযৌক্তিক কারনে আবাস যোজনার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার অভিযোগ

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুর: পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দেশপ্রাণ ব্লকের সরদা অঞ্চলের আবাস যোজনার তালিকা থেকে ২৮১ জনের নাম বাদ গেছে। বাতিলের কারণ হিসাবে উপভোক্তার মোটরসাইকেল, অটোরিকশা / মেসিন রিকশা, চার চাকার গাড়ী, পাম্প মেশিন, ল্যান্ড লাইন টেলিফোন থাকা ইত্যাদি কারণ দেখানো হয়েছে বলে তৃণমূল নেতা ও জেলার প্রাক্তন সহকারী সভাধিপতি মামুদ হোসেন জানিয়েছেন। ডুপ্লিকেট আধার কার্ড, দুটির বেশী রুম থাকা, পাকা বা অন্য বাড়ীঘরের মালিকানা ইত্যাদি বিষয়গুলি বাতিলের অন্যতম কারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার নিয়মাবলী মেনে আবাস যোজনার তালিকা থেকে নাম বাদ গেছে বলে আওয়াস প্লাস পি ডবল্যু এল সফটওয়্যার ব্যবহার করে এই বাতিলের তালিকা গত ২৩ শে জুন পাওয়া গেছে বলেও মামুদ হোসেন জানিয়েছেন। বাতিলের তালিকার শতকরা ৮০ ভাগই হতদরিদ্র, গৃহহীন ও পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়/ জাতির মানুষজন।

দেশপ্রাণ ব্লকের সরদা অঞ্চলের অযোধ্যাপুর হরিজন পল্লীর পঙ্গু বৃদ্ধ খগেন সারের কোন বাড়ী নেই অথচ আবাস যোজনার তালিকা থেকে তাঁর নাম বাতিলের কারণ দেখানো হয়েছে ল্যান্ড লাইন টেলিফোন থাকা। যাঁর বাড়ী নেই তাঁর ল্যান্ড লাইন টেলিফোন থাকে কি করে? কাজলা গ্রামের সেক লোকমান চোপদারের বাড়ী নেই অথচ তার নামের পাশে বাড়ীতে দুটির বেশী রুম রয়েছে বলে উল্লেখ রয়েছে। সরদার বাপী দাস, মানস মাইতি, চন্দন পাল, অঞ্জলি সাহু, শ্যামচাঁদ পাল, মাজেদ আলি প্রমুখের ক্ষেত্রে ভূতুড়ে কারণ দেখিয়ে আবাস যোজনার উপভোক্তার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়া হয়েছে।

তাছাড়া অটোরিকশা, মেসিনরিকসা, মোটরসাইকেল, পাম্প মেশিন ইত্যাদি থাকা আবাস যোজনার তালিকা থেকে নাম বাদ দেওয়ার কারণ হিসেবে সম্পূর্ণ বাস্তবসম্মত নয়। দেশপ্রাণ ব্লক সহ গোটা পুর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে অযৌক্তিক ভাবে অনেকের নাম আবাস যোজনার উপভোক্তার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রাক্তন সহকারী সভাধিপতি মামুদ হোসেন জেলাশাসক কে ই-মেইল বার্তা পাঠিয়ে আবাস যোজনার তালিকা পুনরায় তদন্ত করে সংশোধিত তালিকা প্রকাশের দাবী জানিয়েছেন। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কোঅরডিনেটর মামুদ হোসেন বলেন,” কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার অযৌক্তিক ও জনবিরোধী নিয়মকানুনের ফলশ্রুতিতেই এত মানুষের স্বার্থ বিঘ্নিত হতে চলেছে”।

Facebook Comments