প্রশাসনিক উদাসীনতায় কাঁথি মহকুমা কৃষি খামার ধুঁকছে

প্রশাসনিক উদাসীনতায় কাঁথি মহকুমা কৃষি খামার ধুঁকছে

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুর: রাজ্য সরকারের কৃষি দপ্তরের অধীন কাঁথি মহকুমা কৃষি খামার (কাঁথি মহকুমা অভিযোজন গবেষণা কেন্দ্র) প্রশাসনিক ঔদাসিন্যে এখন ধুঁকছে।

দেশপ্রাণ ব্লকের দক্ষিণ সরদায় কাঁথি মহকুমা কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের বিশাল অংশের জায়গায় একদকে কিষাণ মাণ্ডি অপরদিকে ফুড গোডাউন নির্মিত হয়েছে। অবশিষ্ট জায়গায় কৃষি গবেষণা কেন্দ্রে লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়ে নির্মিত গবেষণা কেন্দ্রের ঘরবাড়ী ও যন্ত্রপাতি অব্যবহৃত অবস্থায় ধ্বংসের কিনারায় দাঁড়িয়েছে। চাষবাসের কাজ এখন অধরা। কর্মীরা কাজের জন্য হাপিত্যেশ করে ঘুরছেন। কৃষি দফতরের কোন হেলদোল নেই। পরিকল্পনার অভাবে মহকুমা কৃষি খামার কোমায় আচ্ছন্ন। দেশপ্রাণ ব্লকের কৃষি দপ্তর অপরিসর ও স্যাতসেঁতে পরিবেশে বসন্তিয়াতে ভাড়া বাড়ীতে চলছে। কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কিষাণ মাণ্ডির অচল অবস্থা। নিম্নমানের কাজের ফলশ্রুতিতে ফুড গোডাউনে ফাটল ধরেছে।

রাজ্য সরকারের কৃষি দপ্তরের অধিকর্তা ও মুখ্য উপদেষ্টা কে ই-মেইল বার্তা পাঠিয়ে অবিলম্বে কাঁথি মহকুমা কৃষি খামার কে রক্ষা করা সহ আধুনিকীকরনের দাবী জানিয়ে সিপিএম নেতা মামুদ হোসেন। তিনি বলেন, “রাজ্য সরকারের কৃষি দপ্তরের সাথে কৃষি ও কৃষকের সঙ্গে কোন সম্পর্ক আছে বলে মনে হয় না। শুধু ক্ষতিপূরণ প্রদান করার মধ্যে দপ্তরের কাজ সীমাবদ্ধ হয়ে পড়েছে।” অবিলম্বে কৃষিদপ্তরকে কৃষি ও কৃষকের স্বার্থ সুনিশ্চিত করতে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানান সিপিএম নেতা মামুদ হোসেন।

Facebook Comments