পিএইচডি ভর্তিতে বঞ্চনা ওবিসি প্রার্থীদের! কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ে ডেপুটেশন দিল সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন

পিএইচডি ভর্তিতে বঞ্চনা ওবিসি প্রার্থীদের! কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ে ডেপুটেশন দিল সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন

নিজস্ব সংবাদদাতা, বেঙ্গল রিপোর্ট, নদীয়া: পিএইচডি ভর্তিতে ওবিসি প্রার্থীদের বঞ্চনার অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ডেপুটেশন দিল সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন। ডেপুটেশন গ্রহন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মানস কুমার স্যানাল বলেন আবেদনকারী থাকা সত্ত্বেও কিভাবে ওবিসি-এ প্রার্থীরা সুযোগ পেল না তা আমরা অবিলম্বে রিভিউ করছি, তিনি তৎক্ষণাৎ এডুকেশন ডিপাটমেন্টের দায়িত্বশীল  অমলেন্দু ভুঁইয়াকে ডাকেন এবং এডুকেশনে কেন ৭ জন প্রার্থী থাকার পরও ২৫ জনের মধ্যে ওবিসি-এ তে সংরক্ষিত ৩ আসনে কেন একজনও সুযোগ পেল না তা নিয়ে রিভিউ করে  দ্রুত ওবিসি-এ প্রার্থীদের নাম নথিভুক্ত করার আবেদন জানান।

সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সভাপতি মাওঃ আনোয়ার হোসেন কাসেমী ও সাধারণ সম্পাদক মহঃ কামরুজ্জামান এক যৌথ বিবৃতিতে জানান, সম্প্রতি আমরা লক্ষ্য করেছি কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ে  পিএইচডি -২০২১ ভর্তির নির্বাচনী তালিকায় ওবিসি সংরক্ষণে বিশেষ করে ওবিসি-এ সংরক্ষণে প্রার্থীদের বঞ্চনা করা হয়েছে। উল্লেখ্য রাজ্য সরকারের উচ্চ শিক্ষায় ছাত্র ভর্তিতে এসসি, এসটি গোষ্ঠীর পাশাপাশি ওবিসি-এ গোষ্ঠীর জন্য ১০ শতাংশ ও ওবিসি-বি গোষ্ঠীর জন্য ৭ শতাংশ আসন সংরক্ষণের নির্দেশিকা রয়েছে।

আমরা দেখেছি কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি প্রোগ্রাম-২০২১ এর ভর্তির Ph.D./01/2021 নং বিজ্ঞাপনে ওবিসি-এ প্রার্থীদের জন্য যতটা আসন সংরক্ষণের নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছিল, উপযুক্ত প্রার্থী থাকা সত্ত্বেও মেরিট লিস্টে তত সংখ্যক প্রার্থীদের স্থান দেওয়া হয়নি। উল্লেখ্য বাংলায় ওবিসি-এ তে ৪ টি, ইকোনোমিক্সে-১, কমার্সে- ১, ইতিহাসে-১, বোটানি-১, জুলজি-২, কেমিস্ট্রি-৩, ফিজিক্স-১, ম্যাথ- ১, এডুকেশন-৩, ফিজিক্যাল এডুকেশন-১ সহ আরো কয়েকটি বিষয়ে একটি একটি করে সংরক্ষণের নির্দেশিকা দেওয়া হয়। কিন্তু মেরিট লিস্টে দেখা যায় বাংলায় ৪ টিতে- ৩ টি, বোটানিতে-১ টিতে শূন্য জন,  কমার্সে ১ টিতে শূন্য জন, এডুকেশনের প্রোভিশন এডমিশন লিস্টে ৩ টিতে শূন্য জন ওবিসি-এ প্রার্থী নির্বাচন করা হয়েছে। অথচ এডুকেশনের মেরিট লিস্টে ৬-৭ জন ওবিসি-এ প্রার্থীদের নাম ছিল। এবং আরও বেশকিছু বিষয়ে ওবিসি-এ  প্রার্থীদের সংরক্ষণের সুযোগ থাকলেও বঞ্চিত করা হয়েছে।

আমরা মনে করছি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই মেরিট লিস্টে ও প্রোভিশন এডমিশন লিস্টে ওবিসি-এ প্রার্থীদের বঞ্চনা করে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্র ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার পথে বাধা সৃষ্টি করা হয়েছে।

এদিন ডেপুটেশনে সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়-

১) পিএইচডি-২০২১ মেরিট লিস্টে ও প্রোভিশন এডমিশন লিস্টে ওবিসি-এ সংরক্ষণের অসংগতি গুলো বিবেচনা করে অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর প্রার্থীদের যথাযথ স্থান দিয়ে পুনরায় তালিকা প্রকাশ করা হোক।

২) পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সংরক্ষণের নিয়ম মেনে পিএইচডি থেকে ছাত্র ভর্তির সমস্ত ক্ষেত্রে ওবিসি-এ প্রার্থীদের ১০ শতাংশ ও ওবিসি-বি প্রার্থীদের-৭ শতাংশ সংরক্ষণ যথাযথ কার্যকরী করা হোক।

৩) বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক অশিক্ষক কর্মী সহ সমস্ত রকম কর্মচারী নিয়োগে ওবিসি সংরক্ষণের মান্যতা দেওয়া হোক।

এদিন ডেপুটেশনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মহঃ কামরুজ্জামান ও সভাপতি মাওঃ আনোয়ার হোসেন কাসেমীর সঙ্গে প্রতিনিধি দলে ছিলেন সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সহ-সভাপতি মাহমুদুল হাসান, সহ সম্পাদক শিক্ষক আলি আকবর, সংখ্যালঘু কাউন্সিলের সহ সম্পাদক গোলাম রহমান, সমাজকর্মী দ্বিজমণি গোলদার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোস্তাকিম সেখ সহ প্রমুখরা।

Facebook Comments