কবি শঙ্খ ঘোষের জীবনাবসান বাংলা সাহিত্যে নক্ষত্র পতন ঘটল

কবি শঙ্খ ঘোষের জীবনাবসান বাংলা সাহিত্যে নক্ষত্র পতন ঘটল

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট: প্রখ্যাত কবি শঙ্খ ঘোষ আর নেই। করোনা আক্রান্ত হয়ে বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় ৮৯ বছর বয়সে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর প্রয়াণের সঙ্গে বাংলার বাংলা সাহিত্যের একটি যুগের অবসান ঘটল। পদ্মভূষণ, দেশিকোত্তম সম্মানে সম্মানিত শঙ্খ ঘোষ সাহিত্য অ্যাকাদেমি, জ্ঞানপীঠ সহ একাধিক পুরস্কার প্রাপ্ত কবি শঙ্খ ঘোষ কয়েক মাস ধরে শারীরিক নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ২১ জানুয়ারি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালেও ছিলেন কয়েক দিন। এর মধ্যে জ্বর ও পেটের সমস্যা দেখা দেয়। এরপর তাঁর করোনা টেস্ট করা হয়। ১৪ এপ্রিল বিকেলে রিপোর্টে জানা যায়, তিনি সংক্রমিত হয়েছেন। তাই কোভিড সংক্রমণ ধরা পরার পর ঝুঁকি না নিয়ে বাড়িতেই নিভৃতবাসে ছিলেন। কিন্তু তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। একসময় তাঁকে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকদের সব প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন কবি। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ ভেন্টিলেটর খুলে নেওয়া হয়। তাঁর মৃত্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক জগতের বহু ব্যক্তি শোক প্রকাশ করেছেন। পরিবারের ইচ্ছানুসারে বুধবা নিমতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।

Deenikart Halal Store

কবি শঙ্খ ঘোষের সংক্ষিপ্ত জীবনী:

শঙ্খ ঘোষ এর আসল নাম চিত্তপ্রিয় ঘোষ। বাবা মনীন্দ্রকুমার ঘোষ এবং মা অমলা ঘোষ। ১৯৩২ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের বর্তমান চাঁদপুর জেলায় তার জন্ম। বংশানুক্রমিকভাবে পৈতৃক বাড়ি বরিশালের বানারিপাড়ায়। তবে শঙ্খ ঘোষ বড় হয়েছেন পাবনায়। পিতার কর্মস্থল হওয়ায় তিনি বেশ কয়েক বছর পাবনায় অবস্থান করেন এবং সেখানকার চন্দ্রপ্রভা বিদ্যাপীঠ থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পাস করেন। ১৯৫১ সালে প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে বাংলায় কলা বিভাগে স্নাতক এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। কর্মজীবনে তিনি যাদবপুর ও বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। ১৯৯২ সালে তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসর নেন। দীর্ঘ কর্মজীবনে নানা ভূমিকায় দেখা গেছে কবিকে। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্বভারতীর মতো প্রতিষ্ঠানে অধ্যাপনাও করেছেন। ইউনিভার্সিটি অব আইওয়ায় ‘রাইটার্স ওয়ার্কশপ’ এও শামিল হন। বছর দুয়েক আগে ‘মাটি’ নামের একটি কবিতায় কেন্দ্রীয় সরকারের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছিলেন তিনি।

Facebook Comments