পুলিশ জেলখানায় আমার স্বামীকে নির্যাতন করছে: অভিযোগ সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পানের স্ত্রী রেহেনার

পুলিশ জেলখানায় আমার স্বামীকে নির্যাতন করছে: অভিযোগ সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পানের স্ত্রী রেহেনার

বেঙ্গল রিপোর্ট ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের মথুরা জেলে বন্দী কেরালার সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পানের স্ত্রী রেহেনা সিদ্দিক অভিযোগ করেছেন উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ তার স্বামীকে কারাগারে নির্যাতন করছে। কেরলের কোকি ষঝোড়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এ অভিযোগ করেন। কেরালা ইউনিয়ন অফ ওয়ার্কিং জার্নালিস্ট এই সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে। রেহেনা এবং তার ভাই হামজা মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন কেও এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার আবেদন করেছেন। তারা মুখ্যমন্ত্রীকে ইউপি সরকারের কাছে বিষয়টি উত্থাপন করতে এবং কাপ্পানের মুক্তি পাওয়ার জন্য চাপ দিতে অনুরোধ করেছে। তারা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে তিরুবন্তপুরমে রাজ্য সচিবালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট শুরু করবে। রেহেনা বলেছিল যে ইউপি পুলিশ কাপ্পানকে বলেছিল যে তাকে সিপিএম কর্তৃক হাথরসে প্রেরণ করা হয়েছে। এবং তিনি সিপিএম এর কোন সাংসদ সদস্যের নাম করতে পারলে বাঁচবেন।

রেহেনা ও হামজা জানান সিদ্দিককেও জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে রাহুল গান্ধী কেন তার বাড়িতে গিয়েছিলেন এবং তিনি গরুর মাংস খান কি না। মষ সিদ্দিক যখন পুলিশকে বলছিল যে তিনি সিপিএম বা অন্য কোনো নেতার পক্ষে নয় বরং রিপোর্টিংয়ের জন্য হাথরসে যাচ্ছেন তখন পুলিশ তাকে লাঞ্ছিত করে। কাপ্পান পুলিশকে আরও বলেছিল যে রাহুল গান্ধী তার বাড়িতে যাননি তবে তিনি নিজে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতে ওয়ানাড়ে গিয়েছিলেন।

উত্তরপ্রদেশের হাথরসে ধর্ষণ শেষে পুড়িয়ে হত্যা করা হয় দলিত তরুনীকে পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে সংবাদ সংগ্রহ করতে যাওয়ার পথে গত ৪ অক্টোবার নিখোঁজ হন সাংবাদিক সিদ্দিক। কয়েকদিন পর পুলিশ জানায় তাকে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। স্ত্রী রেহেনার অভিযোগ মুসলিম হওয়ার কারণেই সিদ্দিককে ফাঁসানো হয়েছে। হাথরসে এত সাংবাদিক এলো গেলো গ্রেফতার করা হল শুধু মুসলিম সাংবাদিককে। কেরালা ইউনিয়ন অফ ওয়ারকিং জারনালিস্ট তার মুক্তির জন্য সুপ্রিম কোর্টে মামলা লড়ছে।

Facebook Comments