হার্মাদ মুক্ত দিবসে তৃণমূলের পতাকা ব্যানার ছাড়াই খেজুরিতে শুভেন্দু অধিকারীর মিছিল ও সভা

হার্মাদ মুক্ত দিবসে তৃণমূলের পতাকা ব্যানার ছাড়াই খেজুরিতে শুভেন্দু অধিকারীর মিছিল ও সভা

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুর: খেজুরির হার্মাদ মুক্ত দিবস উপলক্ষে আজ ২৪ নভেম্বর খেজুরিতে বিশাল পদযাত্রা করলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। খেজুরির বাঁশগোড়া থেকে কামারদা বাজার পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার করলেন শুভেন্দু অধিকারী। শুভেন্দু বাবুর পদযাত্রায় পা মেলান খেজুরির কয়েক হাজার মানুষ।

কামারদা বাজারে আয়োজি সভায় বক্তব্য গিয়ে ২০১০ সালে হার্মাদদের খেজুরি দখল করার ঘটনার কথা উল্লেখ করে শুভেন্দু বাবু বলেন, “সে ভয়ঙ্কর দিন ছিল। ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ এখানে তিনশো হার্মাদ বন্দুকবাজ হামলা চালায়। সাড়ে তিনটেয় খবর পেয়েও প্রতিরোধ করতে পারিনি। তখন খেজুরিতে গণতন্ত্র বলে কিছু ছিল না‌। হার্মাদদের সাহায্য করেছিল পুলিশ। মা-বাবা, ভগবানের আশীর্বাদ নিয়ে বেলা ১২ টায় কামারদা পৌঁছাই। আমাকে দেখে হার্মাদ বাহিনী হতচকিত হয়ে গিয়েছিল। মনের জোর সম্বল করে ওদের তাড়া করি। তা দেখে পিলপিল করে মানুষ আমার সঙ্গে এসে রুখে দাঁড়ান। তাড়া খেয়ে হার্মাদরা শুনিয়ার চরে গিয়ে আশ্রয় নেয়, বেলা আড়াইটে নাগাদ খেজুরি হার্মাদমুক্ত হয়েছিল। শুভেন্দুবাবু আরও বলেন, ২০১১ সাল থেকে এই দিনটি স্মরণ করতে প্রতি বছর এখানে আসি। ভালোভাবে একসঙ্গে মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করতে হবে। শান্তি, গণতন্ত্র, বাকস্বাধীনতার চিরস্থায়ী হোক সেটাই চাই।

তবে কামারদা বাজারে আয়োজিত আজকের সভা ও মিছিলে তৃনমূলের কোন পতাকা ও ব্যানার চোখে পড়েনি।শুভেন্দু অধিকারীর আজকের এই কর্মসূচীতে তিনি ছাড়াও খেজুরীর বিধায়ক রনজিত মন্ডল, উত্তর কাঁথির বিধায়ক বনশ্রী মাইতি, জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ মধুরিমা মন্ডল উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments