অলিমে নজরকাড়া সাফল্য হুগলীর আল ফারাহ মিশনের

অলিমে নজরকাড়া সাফল্য হুগলীর আল ফারাহ মিশনের

শিরাজুল মল্লিক, বেঙ্গল রিপোর্ট, হুগলী: ধারাবাহিক সাফল্যের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলির মধ্যে অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠান হুগলীর আল ফারাহ মিশন পরিচালিত দারুন্নেদা সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসা। বিগত কয়েক বছরের মত এবছরেও আলিম (মাধ্যমিক) পরীক্ষায় তাদের সাফল্য নজরকারা। বিগত বছরের সাফল্যের ধারাকে অব্যাহত রেখে এবছর ও ১১জন পরীক্ষার্থীর ৮ জন স্টার মার্কস সহ সকলেই প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছে।

ছাত্রদের সাফল্যে খুশি মিশনের সাধারণ সম্পাদক, ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা তামিম উদ্দিন সহ সমস্ত শিক্ষক মন্ডলী। করোনা আবহে বন্ধ মিশন। এক ঘেয়ে এই পরিবেশে খুশির হাওয়া বয়ে নিয়ে এল ছাত্রদের এই নজরকাড়া ফল। ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত দারুন্নেদা সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসা থেকে প্রথম আলিম পরীক্ষায় বসে ২০১০-এ।

আর প্রথম বছরেই নজরকাড়া সাফল্য আনে দারুন্নেদার ছাত্ররা। এর পর ২০১২ তে এই মাদ্রাসার ছাত্ররা রাজ্যে পঞ্চম ও ২০১৬-তে সপ্তম ও নবম ও ২০১৯ এ রাজ্যের মধ্যে চতুর্থ ও নবম স্থান অধিকার করে মিশনের নাম উজ্জ্বল করেন। চলতি বছরেও রাজ্যে ১১ তম স্থান অধিকার করে সেই সাফল্যের ধারা কে অব্যাহত রাখে হাসানুল্লাহ গায়েন (৭৮২)। এছাড়াও শেখ নুরুল হুদা (৭৫৩), মহঃ ইকরামুল খান (৭৪৯), ইনজামাম মোল্লা (৭২৫), সাইদুল গাজী (৭১৪), সাইদুল হাসান লস্কর (৭০৫)-দের নম্বর ও নজরকাড়া। যাদের অধিকাংশই নিন্মবিত্ত গরিব পরিবার থেকে উঠে আসা।

ধারাবাহিক এই সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে আল-ফারাহ মিশনের সাধারন সম্পাদক পীরজাদা তামিম সিদ্দিকী বলেন, “দ্বীনি পরিবেশ, শিক্ষার্থীদের নিয়মিত অধ্যবসায়, গভর্নিং বডির দক্ষ পরিচালনা, এলাকাবাসীর আন্তরিক সহযোগিতা, এবং শিক্ষকদের কর্তব্যনিষ্ঠা এবং যারা দীর্ঘদিন ধরে মাদরাসার উন্নতি কল্পে দান করে আসছেন তাদের মহানুভবতা, যাদের দান ছাড়া এতবড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করাই অসম্ভব। সর্বোপরি মহান আল্লাহর অশেষ রহমত এ সাফল্যের মূল ভিত্তি।

তিনি আরও বলেন যে, “রাজ্যের প্রত্যন্ত প্রত্যন্ত গ্রামের গরিব ছাত্রদের এখানে স্বল্পমূল্যে শিক্ষা দান করা হয়।

Facebook Comments