ভোরের আলো সংস্থার মানবিক উদ্যোগ, শিশু ও দুস্থ মানুষের মুখে একটু হাসি ফোটানোর চেষ্টা

ভোরের আলো সংস্থার মানবিক উদ্যোগ, শিশু ও দুস্থ মানুষের মুখে একটু হাসি ফোটানোর চেষ্টা

রূপাঞ্জন রায়, বেঙ্গল রিপোর্ট, হুগলী: এবার পুজো অন্য রকমের। অন্য সমস্ত বছরের থেকে আলাদা। বেঁচে থাকাটাই যেন এখন বিলাসিতা। ভোরের আলো সেচ্ছাসেবী সংস্থার বেশ কিছু তরুণ-তরুণী সদস্যরা প্রতিবারের মতই এবারের পুজোয় পথে নেবে পড়ে মানুষের মুখে একটু হাসি ফোটানোর উদ্যেশ্যে।

প্রত্যন্তগ্রামাঞ্চলের ছোট ছোট শিশুদের হাতে নতুন বস্ত্র উপহার তুলে দেওয়া, বৃদ্ধাশ্রম এবং সর্বহারা দাদু ঠাকুমাদের হতে পুজোর উপহার তুলে দেওয়া। যে সমস্ত মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনা করতে চায় অথচ বাড়ির আর্থিক অবস্থার কারণে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে তাদের পড়াশোনার যাবতীয় জিনিসপত্র উপহার দেওয়া।

শুভ মহা ষষ্ঠীর প্রাক্কালে কাক ভোরে ভোরের আলো পৌঁছে গিয়েছিল ত্রিবেণী স্নানের ঘাটে, ভিক্ষুক ঠাকুমা দাদুদের হাতে তুলে দেওয়াহয় পুজোর নতুন বস্ত্র।বিনিময়ে তারা আদায় করেনিল বুকভরা ভালোবাসা। এর পাশাপাশি তারা হীগলী জেলার খন্যান এর প্রত্যন্ত মাখালডি গ্রামের ৬০ জন শিশুর হাতে তুলে দেয় পুজোর উপহার এবং সামান্য কিছু খাবার। বিনিময়ে তারাঁ পেলো শিশু মুখের হাসি ও তাদের সঙ্গে কিছু আনন্দের মুহূর্ত কাটানোর সুযোগ। ভোরের আলোর এই অভাবনীয় উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে।

Facebook Comments