স্কুল পড়ুয়াদের মিড-ডে মিল প্রকল্পে কেন্দ্রের নয়া ফরমানে স্কুলগুলির নাভিশ্বাস অবস্থা

স্কুল পড়ুয়াদের মিড-ডে মিল প্রকল্পে কেন্দ্রের নয়া ফরমানে স্কুলগুলির নাভিশ্বাস অবস্থা

সুব্রত গুহ, বেঙ্গল রিপোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুর: স্কুল পড়ুয়াদের মিড-ডে মিল প্রকল্প নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের তুঘলকি সিদ্ধান্তের জেরে বিভিন্ন বিদ্যালয় কতৃপক্ষের নাভিশ্বাস উঠেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের ফরমানে মিড-ডে মিলের নাম পাল্টে প্রধানমন্ত্রী পোষণ শক্তি নির্মাণ প্রকল্প করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী প্রতিটি রাজ্যে নির্দিষ্ট রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে এই প্রকল্পের নোডাল ব্যাঙ্কের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
পশ্চিমবঙ্গে মিড-ডে মিল প্রকল্পে নোডাল ব্যাঙ্কের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক কে।রাজ্য, জেলা, ব্লক, স্কুল সবস্তরে ই জিরো ব্যালান্স একাউন্ট খুলতে হবে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে। রাজ্য, জেলা এবং ব্লক স্তরে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে মিড-ডে মিলের অ্যাকাউন্ট খোলার সমস্যা নেই।

কিন্তু পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রায় ৫ হাজার প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, শিশু শিক্ষা কেন্দ্র, মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্র, মাদ্রাসা সমূহের ক্ষেত্রে কেবলমাত্র পিএনবি তে অ্যাকাউন্ট খোলা অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। জেলার ২৫ টি ব্লকে র ২২৩ টি অঞ্চল ও ৫ টি পৌরসভার সব ওয়ার্ডে পিএনবি র শাখা নেই। অধিকাংশ স্কুলের দু-এক কিলোমিটারের মধ্যে অন্য রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শাখা থাকলেও পিএনবি র শাখার অমিল রয়েছে। এর ফলশ্রুতিতে স্কুল থেকে অনেক দূরে পিএনবি র শাখায় একাউন্ট খুলতে গিয়ে স্কুলের জেরবার অবস্থা। তাছাড়া ব্যাঙ্কের দূরত্বে টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তার সমস্যা তৈরীর সম্ভাবনাকে প্রশস্ত করতে পারে।

সব মিলিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সর্বস্তরের অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মিড-ডে মিলের একাউন্ট খোলা নিয়ে হয়রানি ও দুর্ভাবনার শিকারে পরিণত হয়েছে বলে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকদের অভিযোগ। প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রাক্তন সহকারী সভাধিপতি মামুদ হোসেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী অধ্যাপক ব্রাত্য বসু কে ই-মেইল বার্তা পাঠিয়ে মিড-ডে মিলের একাউন্ট খোলা নিয়ে জটিলতা নিরসনের আবেদন জানিয়েছেন।

Facebook Comments