সচেতনতা ছাড়াই উপচে পরা ভীড় রামপুরহাট বাজারে

সচেতনতা ছাড়াই উপচে পরা ভীড়
রামপুরহাট বাজারে

অমলেন্দু মন্ডল, বেঙ্গল রিপোর্ট, বীরভুম: রাজ্য সরকার ঘোষিত সাপ্তাহিক লকডাউন ছাড়াও বীরভুমের সবকটি পুরসভা এলাকায় প্রতিদিন দুপুর ১২ টা থেকে রাত্রি ১০ পর্যন্ত লক ডাউন ঘোষনা করেছেন বীরভুম জেলা প্রশাসন। এছাড়া ও রামপুরহাট পুরসভার ৫ নং ওয়ার্ডে ৭ দিনের সম্পূর্ণ লক ডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। ওই এলাকায় করোনা পজিটিভ হওয়ার কারনে এলাকাটিকে কোন্টাইন্টমেন জোন ঘোষনা করে এলাকাটি ঘিরে দিয়েছে পুরসভা।

রামপুরহাট শহরের ৫ নং ওয়ার্ডটি শহরের হাটতলা বলেই পরিচিত। ওখান থেকেই মানুষ নিত্য প্রয়োজনীয় সবজি নটকোনা সব কিছু ক্রয় করেন। হোলসেল রিটেল বেশির ভাগ দোকানই ওখানে। “ওই ওয়ার্ডে বাস করেন রাজ্যের কৃষি মন্ত্রী আষিশ বন্দোপাধ্যায়।” ওয়ার্ডটি ঘিরে দেওয়ায় সাধারণ মানুষের সুবিদার্থে ওই বাজারটি স্থানান্তরিত করা হয়েছে রামপুরহাট কলেজ সংলগ্ন মাঠে।

শনিবার সম্পুর্ন লকডাউন থাকায় ও রবিবার থেকে একবেলা খোলা থাকবে জেনে মানুষের ভীড় উপচে পরেছে বাজারে। ক্রেতা থেকে বিক্রেতা অনেকেরই মুখে নেই মাক্স। আর সামাজিক দুরত্ব তো দূরের কথা, একে অপরের উপর হুমড়ে পরছে।

শহরের সচেতন মানুষদের বক্তব্য এভাবে লকডাউন করে কি কোরনা সংক্রমণ আটকানো যাবে? একদিন মানুষ বাইরে বেড়লে তাকে সাবধান করা হচ্ছে, অথচ লক ডাউন যখন থাকছে না তখন জমায়েত ভীড় অস্বাভাবিক মাত্রায় বেড়ে যাচ্ছে। নিয়ম নির্দিষ্ট করে সংক্রমণ প্রতিরোধ করার দাবী শহরের সচেতন মানুষদের।

Facebook Comments