বিদ্যুৎ না থাকায় এলাকায় বাঘের আনাগোনা, আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সুন্দরবনের মৈপিঠের বাসিন্দারা

বিদ্যুৎ না থাকায় এলাকায় বাঘের আনাগোনা, আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সুন্দরবনের মৈপিঠের বাসিন্দারা

সাকিব হাসান, বেঙ্গল রিপোর্ট, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা: দীর্ঘদিন যাবত লো-ভোল্টেজের জন্য শিকেয় উঠল স্কুল পড়ুয়াদের পড়াশোনা। দৈনন্দিন জীবনে যোগাযোগ এর মাধ্যম মোবাইলটাও চার্জ দেওয়ার মতো ভোল্টেজ মেলে না। তার উপর লোকালয়ে বারংবার বাঘ আসায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন এলাকার মানুষ। এনিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

সমাজ কর্মী পিন্টু প্রধান ও সৈকত শাসমল বললেন, মইপিট বৈকুন্ঠপুর এলাকা সংলগ্ন কয়টি গ্রাম। আর এই সমস্ত এলাকায় জামতলা বৈদেশিক সাব স্টেশন থেকে মৈপিঠ ও গুড়গুড়িড়া অঞ্চলের সমূহ গ্রাম গুলিকে বিদ্যুৎ সরাবরাহ হয়। আর বিদ্যুৎ না থাকায় গ্রামের পাশে ঝোপ ঝাড়ে দেখা মিলছে বাঘ মামার। ইতি পূর্বে বৈকুন্ঠপুর গ্রামে ধান মাড়িয়ে সব্জি খেতে বাঘের পায়ের ছাপ মেলায় বন দপ্তরের ADFO বনি ক্যাম্প সহ কুলতলির বিট অফিস এর কর্মী দের নিয়ে বেশ কয়েক দিন যাবৎ নেটিং এর কাজ চলে। কিন্তু কয়েক মাস যাবত এখানে সন্ধ্যা নামলে টিমটিম করে জ্বলে ইলেকট্রিক বাল্ব। তা নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের বারবার বিদ্যুৎ দপ্তর কে জানানো সত্ত্বেও মেলেনি প্রতিকার।ইতিপূর্বে কয়েকবার লোকালয়ে বাঘ চলে আশায় সাধারণ মানুষ ভীতসন্ত্রস্ত। এখনো পর্যন্ত অনেক জায়গায় ইলেকট্রিক পোস্ট ও ঢোকেনি, কোথাও বা পড়ে আছে শুধু ইলেকট্রিক খুঁটি মাথায় নেই তার। তার উপরে মোবাইলের চার্জ দেওয়ার মতো বিদ্যুৎ না থাকায় নাজেহাল।

Facebook Comments