রামপুরহাটে পালিত হল বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও রক্তদান শিবির

রামপুরহাটে পালিত হল বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও রক্তদান শিবির

অমলেন্দু মল্ডল, বেঙ্গল রিপোর্ট, বীরভু্ম: একটি গাছ, একটি প্রাণ। গাছ লাগান প্রাণ বাঁচান। এই সব শ্লোগানকে সামনে রেখে ৫ জুন অর্থাৎ শনিবার জেলায় জেলায় পালিত হল বিশ্ব পরিবেশ দিবস। পুলিশকর্মী থেকে শুরু করে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা এদিন নিজেদের হাতে গাছ লাগান নিজস্ব এলাকায়।

এদিন বীরভূম জেলায় রামপুরহাট পুরসভার দিঘির র্পাকে নিজে হাতে বৃক্ষরোপণ করলেন বিধায়ক আশিষ বন্দোপ্যাধায় ও পৌর প্রশাসক মিনাক্ষি ভকত। বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নেওয়া হয় সেই সঙ্গে রক্তদান শিবির ও করে পৌর কর্মচারিরা রক্তদান করেন।

অন্যদিকে, বিশ্ব পরিবেশ দিবসে চকমন্ডলা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে দাদুর হেঁসেল কর্মকর্তা পান্থ দাস জহুরুল সেখ স্বয়ম সমস্থার কর্ণধার, কৌশিক আইচ ও সুচরিতা আইচ একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যেমে বৃক্ষরোপন আর রক্তদান শিবিরের আয়োজন করেন। এই বিশেষ অনুষ্ঠানে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে এবং কর্মবীর মুকুন্দবিহারী সাহা জীবন দর্শন নিয়ে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক নিখিল কুমার সিনহা, রামপুরহাট ১নং ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহোদয়া এবং সমাজসেবী আনারুল হোসেন।

সেচ্ছাসেবী সংগঠন এবং বিভিন্ন পরিবেশ প্রেমীদের সঙ্গে নিয়ে এলাকায় গাছ লাগানো শুরু হয়। পাশাপাশি স্থানীয় মানুষদের মধ্যেও চারা গাছ বিলি করা হয়। পান্থ দাস বলেন, ‘‘আমরা এইভাবেই ১নং ব্লকে বিভিন্ন এলাকায় গাছ লাগিয়ে পরিবেশকে আবার আগের জায়গায় ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি।’’
রামপুরহাট ১নং ব্লকের তৃণমূল সভাপতি আনারুল হোসেন জানান, সম্প্রতি প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে পড়ে অনেক গাছ পড়ে গিয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তাই বিশ্ব পরিবেশ দিবসে রামপুরহাট এলাকার বিভিন্ন জায়গায় প্রচুর গাছ লাগানো হচ্ছে।

বিধায়ক আশিষ বন্দোপ্যাধায় জানান, ইয়াস ঝড়ে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে অনেক গাছ পড়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছে। এই করোনা আবহের মধ্যেই রাজ্য সরকারের উদ্যোগে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে সবুজ বিপ্লব ঘটনার জন্যই এই কর্মসূচি। পাশাপাশি এদিন বিশ্ব পরিবেশ দিবসে কোভিড-১৯ ভাইরাসের নিয়মবিধি মেনে গাছ বাঁচাও দিবস হিসেবে পালিত হয়। স্বয়ম সংস্থার কর্ণধার কৌশিক আইচ জানান মানুষের পাশে ছিলাম আছি থাকবো, দাদুর হেঁসেল আমাদের দে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান আমারা তাদের সাছে এসেছি, আমার সংগঠন সারা বছরই সমাজ সেবা মুলক করে আগামী দিনেও করবো।

Facebook Comments